বিনোদনসেরা খবর

হারনাজ থেকে ঐশ্বর্য, খেতাব জেতার পরেই পুরোপুরি বদলে গেছে এই ৭ সুন্দরীর চেহারা

সৌন্দর্যের পূজা আজকে নয়, যুগ যুগ ধরে হয়ে আসছে। নারীর সৌন্দর্য, বুদ্ধিমত্তাকে সম্মান জানাতেই আয়োজন করা হয় ‘মিস ওয়ার্ল্ড’, ‘মিস ইউনিভার্স’-এর মতো প্রতিযোগিতা। সারা বিশ্বের নারীরা উঠে পড়ে লাগেন সেরার তালিকায় নিজের নাম লেখাতে। এর মধ্যে এমন অনেক ভারতীয় নারী আছেন যারা নিজেদের সৌন্দর্য এবং বুদ্ধিমত্তা দিয়ে জিতে নিয়েছেন সারা বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের হৃদয়‌। অনেকেই আবার বলিউডেও পাকাপোক্ত জায়গা করে নিয়েছেন। তবে সময়ের সাথে সাথে এই বিশ্ব সুন্দরীদের সৌন্দর্যে কোনো ভাঁটা পড়েছে কি? নাকি একইরকম দেখতে আছেন এই বিশ্বজয়ী নারীরা। চলুন দেখে নিই এখন কেমন দেখতে হয়েছেন আমাদের দেশের এই সমস্ত বিশ্বসুন্দরীরা।

হারনাজ সান্ধুঃ- তালিকার প্রথম নামটি হলো হারনাজ সান্ধু, যিনি ২০২১ সালে ‘মিস ইউনিভার্স’-এর খেতাব ছিনিয়ে নিয়েছেন। মিস ইউনিভার্সের খেতাব জয়ী হারনাজ সান্ধু সারা বিশ্বে নিজের দেশের নাম উজ্জ্বল করেছেন এবং নজরকাড়া জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। তবে আশ্চর্যজনক ভাবে ‘মিস ইউনিভার্স’ খেতাব পাওয়ার মাত্র ৩ মাসের মধ্যেই অস্বাভাবিক ওজন বেড়েছে তার। তার এই বিষ্ময়কর রূপান্তর দেখে রীতিমত অবাক হয়ে গেছেন ভক্তবৃন্দরা।

 

লারা দত্তঃ- তালিকায় রয়েছে লারা দত্তের নামও‌। ২০০০ সালে ‘মিস ইউনিভার্স’-এর খেতাব জিতেছিলেন তিনি। খেতাব জয়ের পর তার ওজন কিছুটা বেড়ে গেলেও এখন আবার আগের মতোই স্লিম-ট্রিম ফিগারে ফিরে এসেছেন তিনি।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়াঃ- ইন্ডাস্ট্রির দেশি গার্ল প্রিয়াঙ্কা চোপড়া মাত্র ১৮ বছর বয়সে মিস ওয়ার্ল্ডের খেতাব জিতেছিলেন। পরবর্তীকালে বলি-হলি সমস্ত জায়গাতেই ব্যাপক জনপ্রিয়তা কুড়িয়েছেন এই অভিনেত্রী, এবং বর্তমানে তিনি একজন ইন্টারন্যাশনাল স্টার। একই সাথে প্রিয়াঙ্কার রূপ লাবণ্যে ভাঁটা পড়া তো দূরের কথা দিন দিন যেন আরো সুন্দরী হয়ে উঠছেন তিনি।

দিয়া মির্জাঃ- ২০০০ সালে অনুষ্ঠিত মিস ‘এশিয়া প্যাসিফিক’ এর খেতাব জিতেছিলেন দিয়া মির্জা। জানিয়ে রাখি সেই সময় দিয়ার বয়স ছিলো মাত্র ১৮ বছর। আজ এতো বছর পর ৪০ এর কোঠায় পা দিয়েও একই রকম সুন্দরী রয়ে গেছেন‌ তিনি।

সুস্মিতা সেনঃ- বলিউড অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন ১৯৯৪ সালে মিস ইউনিভার্স খেতাব জিতেছিলেন এবং সেই সময় সুস্মিতা সেনের বয়স ছিল মাত্র ১৮ বছর। এতো কম বয়সে বিশ্বদরবারে দেশের নাম উজ্জ্বল করায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলো সুস্মিতা। জানিয়ে রাখি তিনি আজও একইরকম মোহময়ী এবং গ্ল্যামারাস।

ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনঃ- সৌন্দর্যের কথা বললেই সবার আগে যে নামটা মাথায় আসে তা ঐশ্বর্য বচ্চন। ভগবান যেন নিজের সমস্ত কাজ ছেড়ে বেশ সময় নিয়ে গড়েছেন তাকে। ১৯৯৪ সালে ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ খেতাবজয়ী এই অভিনেত্রী বলিউড তথা সারা বিশ্বে নিজের রূপের জাদু বিছিয়ে রেখেছেন। আজ ৪৭ বছর বয়সে এসেও তার সৌন্দর্য এতোটুকুও কমেছে কি? বোধহয় কমার পরিবর্তে দিনদিন বেড়েই গেছে।

তনুশ্রী দত্তঃ- বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত ২০০৪ সালে ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া ইউনিভার্সের খেতাব জিতেছিলেন। পুরস্কার জেতার কয়েক মাস পরে, তনুশ্রী দত্তের ওজন অস্বাভাবিক রকম বেড়ে গিয়েছিল, যদিও তিনি কঠোর পরিশ্রমের দ্বারা ১৮ মাসের মধ্যে নিজের ১৮ কেজি ওজন কমিয়েছিলেন।

Related Articles

Back to top button