বিনোদনসেরা খবর

‘সব্যকে নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়ালে আইনি ব্যবস্থা নেব’, নেটমাধ্যমকে হুঁশিয়ারি সৌরভের

রবিবারের দুপুরে যখন সবাই ছুটির মজা নিচ্ছিল ঠিক তখনই খবর এসেছিল, ঐন্দ্রিলা শর্মা আর নেই। ওরকম প্রানবন্ত, পজিটিভ এনার্জিতে ভরপুর একটা মেয়ে জীবনযুদ্ধের লড়াইয়ে হেরে গেছে। ঘটনার সত্যতা এখনও মেনে নিতে পারছেনা অনুরাগীরা। তবে এসবের মধ্যে অনুরাগীদের উৎকণ্ঠা ছিল সব্যসাচীকে নিয়ে।

ঐন্দ্রিলাকে ছাড়া তাঁর ‘সব্য’ কেমন আছেন? এই কটাদিন প্রতিনিয়ত এই একটা ভাবনাই ঘুরপাক খেয়েছে সবার মনে। আর ঠিক তখনই খবর এল, সব্যসাচী নাকি গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি। গত বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে আচমকা এমন খবরে তোলপাড় চারদিক। আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে মুহূর্তে।

সত্যিই কি এমনটা ঘটেছে? এবার এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন ঐন্দ্রিলার কাছের বন্ধু সৌরভ দাস। এইদিন সব্যসাচীর হয়ে সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিলেন তিনি। সৌরভের মতে, সব্যসাচী সামাজিক মাধ্যমে নেই বলে তাকে নিয়ে গুজব ছড়ানো খুব সহজ হয়ে উঠেছে। কিন্তু এমনটা যেন আর না করা হয়।

এইদিন মধ্যরাতে ফেসবুক থেকে পোস্ট করে তিনি জানান, ‘‘সব্যসাচী সুস্থ আছে। সঙ্গে আছি আমি এবং থাকব।’’ পাশাপাশি নেট নাগরিকদের একাংশকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ‘যারা ভুয়ো খবর রটাচ্ছেন, তারা অসুস্থ, বিব্রত হবেন না।’ পাশাপাশি তিনি এটাও বুঝিয়ে দিলেন যে এই খবরগুলো কতটা বিরক্তির।

অভিনেতা তার লেখার মধ্যে বুঝিয়ে দিলেন যে, একটা পরিবার তাদের সদস্যকে হারিয়েছে, বিষয়টা মনের মাধুরী মিশিয়ে কাব্য লেখার প্রতিযোগিতা নয়। পোস্টের শেষ অংশে লিখেছেন, তিনি গালমন্দ করতে রাজি নন এই পোস্টে, যাতে শেয়ার করে সবাই সব্যসাচীর ব্যাপারে জানাতে পারেন।

পাশাপাশি আইনি হুমকিও দেন তিনি। সৌরভ বলেন, এরপরেও যদি কোনো ভুয়ো খবর ছড়ানো হয় তখন আইনের দ্বারস্থ হবেন তিনি। এর সাথেই তিনি লেখেন, ‘‘দয়া করে পরিবার পরিজনকে শান্তিতে থাকতে দিন।’’ এমতাবস্থায় অহেতুক উত্ত্য‌ক্ত না করে শোকে মুহ্যমান পরিবারকে ব্যক্তিগত সময় দেওয়া উচিত বলেই তাঁর দাবি।

Related Articles

Back to top button