বিনোদনসেরা খবর

একে অপরকে অগাধ ভালোবাসলেও ঘেন্নায় মুখ ফিরিয়েছিল দুজনেই, রইল দিলীপ-মধুবালার অসম্পূর্ণ প্রেমকাহিনী

বি টাউনে এমন অনেক জুটির উদাহরণই আছে যারা একে অপরকে প্রবল ভালোবাসলেও শেষ পর্যন্ত পরিণতি দিতে পারেনি সম্পর্কেকে। এমনই এক জুটির উদাহরণ হলো দিলীপ কুমার এবং মধুবালা। একটা সময় ব্যাপক লাইমলাইটে ছিলো এই দুই তারকা। তবে জেনে অবাক হবেন দিলীপ কুমার মধুবালার প্রতি গভীরভাবে অনুরক্ত হওয়া সত্ত্বেও একবার কোর্টে অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত এই দুই তারকার মধ্যে কেমিস্ট্রির অভাব না থাকলেও তাদের সম্পর্কে বাধা ছিলেন অভিনেত্রীর বাবা। ঘটনার সূত্রপাত হয় ‘নয়া দৌড়’ ছবির শুটিংয়ের সময় থেকে। ছবির পরিচালক সেই সময় মুম্বইয়ের বাইরে গিয়ে ছবির শুটিং করতে চেয়েছিলেন।

কিন্তু অদ্ভুতভাবে সেইসময় কিন্তু মধুবালার বাবা তাকে দিলীপ কুমারের সাথে শুটিং করতে শহরের বাইরে পাঠাতে চাননি। খুব স্বাভাবিক ভাবেই এই বিষয়টিকে কেন্দ্র করে তৈরি হয় বিতর্ক এবং এর ফলস্বরূপ মধুবালার পরিবর্তে সেই ছবিতে কাস্ট করা হয় বৈজয়ন্তী মালাকে।

এই ঘটনার পর বি আর চোপড়া মধুবালার বিরুদ্ধে ৩০ হাজার টাকার ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা দায়ের করেন। আর এই মামলাতেই অভিনেত্রী ও তার বাবার বিরুদ্ধে আদালতে সাক্ষ্যও দিয়েছেন দিলীপ কুমার। এরপর থেকেই আরো জট পাকে তাদের সম্পর্কে।

মিডিয়া রিপোর্ট অনুসারে, মধুবালা তাদের সম্পর্ক বাঁচাতে দিলীপ কুমারের কাছে অনুরোধ করে তার বাবার কাছে ক্ষমা চাইতে বলেছিলেন। কিন্তু দিলীপ কুমার মধুবালার কথা শোনেননি এবং স্পষ্টভাবে অভিনেত্রীর অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছিলেন।

এই ঘটনার পরই ভেঙে যায় তাদের সম্পর্ক। এরপর সময়ের সাথে সাথে একে অপরের থেকে চিরতরে আলাদা হয়ে যায় দুজন। দিলীপ কুমার বিয়ে করেছিলেন অভিনেত্রী সায়রা বানুকে। পাশাপাশি গায়ক কিশোর কুমারকে নিজের জীবনের সঙ্গী করেছিলেন মধুবালা।

Related Articles

Back to top button