বিনোদনসেরা খবর

নতুন সিরিয়াল আসতেই পুরোনো সিরিয়ালে ধাক্কা! ‘সোহাগ জল’র সম্প্রচারের জন্য বন্ধ হতে পারে এই জনপ্রিয় ধারাবাহিক

একটার পর একটা নতুন ধারাবাহিক লঞ্চ করে চলেছে জি বাংলা। বাংলা টেলিভিশনের অন্যতম জনপ্রিয় চ্যানেল এটি। আসলে নিভে যাওয়া টিআরপি ফেরাতেই এই উদ্যোগ নিয়েছে চ্যানেল কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যেই একটা নতুন ধারাবাহিক হল শ্বেতা ভট্টাচার্য ও হানি বাফনার ‘সোহাগ জল’। সিরিয়ালের প্রথম প্রোমো বেশ ভালোই নজর কেড়েছে সবার। প্রোমো সামনে আসবার পর থেকেই সবার মনে প্রশ্ন ছিল কোন স্লটে আসবে এই ধারাবাহিক?

শুরু থেকেই একথা স্পষ্ট ছিল যে, ‘নিম ফুলের মধু’র মতোই এই সিরিয়লকেও প্রাইম স্লটেই দেবে চ্যালেন কর্তৃপক্ষ। আর সম্প্রতি সেই জল্পনাতেই শিলমোহর লাগিয়ে নতুন ধারাবাহিক ‘সোহাগ জল’ সম্প্রচারণের সময় জানালো জি বাংলা। আর এতেই থেকেই স্লট হারা হতে চলেছে চ্যানেলের আরো একটি জনপ্রিয় সিরিয়াল।

সূত্রের খবর, আগামী ২৮শে নভেম্বর থেকে রাত ৯টায় সম্প্রচারিত হবে শ্বেতা ভট্টাচার্য আর হানি বাফনার নতুন ধারাবাহিক ‘সোহাগ জল’। অর্থাৎ ‘এই পথ যদি না শেষ’ ধারাবাহিক ফের একবার স্লটহারা। কারণ মাত্র কয়েক মাস আগেই রাত ৯ টা-র স্লটে আনা হয়েছিল উর্মি-সাত্যকিকে। কিন্তু স্টার জলসার ‘এক্কা দোক্কা’র সঙ্গে এঁটে না ওঠায় নতুন ধারাবাহিক আনার সিদ্ধান্ত জি বাংলার।

তাই খানিকটা বাধ্য হয়েই ‘ক্রেজি আইডিয়াজ’ প্রোডাকশনের এই ধারাবাহিককে সরানো হচ্ছে। নতুন সিরিয়ালের আগমনে ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’-র চরম সর্বনাশ হয়ে গেল একথা বলাই বাহুল্য। অবশ্য এখানেই শেষ নাকি এরপর ধারাবাহিককে বন্ধই করে দেওয়া হবে তা এখনও জানা যায়নি। তবে গত কয়েকদিন ধরেই টলি পাড়ার গুঞ্জন এবার শেষের পথে ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’।

যদিও জি বাংলার তরফ থেকে এই বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এখনও আসেনি। এমনকি নায়ক নায়িকার তরফ থেকেও কোনো জবাব আসেনি এই নিয়ে। তবে বছর শেষে হওয়ার আগেই উর্মি-সাত্যকির পথ চলা শেষ হবে এমনটাই গুঞ্জন টেলিপাড়ায়। আপাতত নাকি মাস কয়েকের জন্য রাতের স্লটে পাঠানো হতে পারে উর্মি-সাত্যকির এই ধারাবাহিককে।

এদিকে সোহাগ জলের কথা বললে, দূরে গিয়েও কাছে আসার গল্প বলবে ‘সোহাগ জল’। প্রেম বা রোমান্স নয়, শুভ্র আর জয়ীর বিয়ে ভাঙা দিয়ে শুরু এই গল্প। নিজের হাতে সংসার সাজিয়ে সেই সংসারকেই ছেড়ে চলে যাচ্ছে সে। এমতাবস্থায় কীভাবে মিলবে দুজনে? আর কীভাবেই বা শুরু হবে তাদের কেমিস্ট্রি? শ্বেতা এবং হানি বাফনার এই নতুন ধারাবাহিক কি টিআরপি রেটিংয়ে বদল আনতে পারবে? জানার জন্য অপেক্ষা তো করতেই হবে।

Related Articles

Back to top button