বিনোদনসেরা খবর

প্রিয়াঙ্কা থেকে শিল্পা শেঠি, ৫ বলিউড অভিনেত্রীর ট্যাটুর পেছনে রয়েছে অনেক রহস্য, রইল অজানা তথ্য

ট্যাটু ক্রেজ এখন পুরোদমে চলছে। কিছু লোকের জন্য এটি শুধুমাত্র একটি ডিজাইন এবং একটি ফ্যাশন। কিন্তু কিছু লোকের জন্য এটি হাজার শব্দ বলার একটি উপায়। ব্যতিক্রম নয় বলিউড তারকারাও। বি টাউনে এমন বেশ কিছু সেলেব রয়েছেন যারা নিজেদের শরীরে এঁকেছেন ট্যাটু আর প্রতিটি ট্যাটুর পেছনেই লুকিয়ে আছে গল্প। এমনই পাঁচ তারকাদের ট্যাটু এবং তার পেছনের গল্প বলবো আজকের এই প্রতিবেদনে।

১) প্রিয়াঙ্কা চোপড়া : বলিউডের দেশি গার্ল এবং গ্লোবাল আইকন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ডান হাতের কব্জিতে ‘ড্যাডিস লিটল গার্ল’ লেখা একটু ট্যাটু করিয়েছেন। এই ট্যাটুটি তার প্রয়াত বাবা অশোক চোপড়ার হাতের লেখায় লেখা। এটি করার উদ্দেশ্য যাতে এই ট্যাটু প্রিয়াঙ্কাকে তার বাবার কথা মনে করিয়ে দেয়। প্রসঙ্গত অশোক চোপড়া ২০১৩ সালে মারা যান। এক সাক্ষাৎকারে প্রিয়াঙ্কা বলেছিলেন যে আমার সাফল্যে আমার বাবা আমার চেয়ে বেশি খুশি হতেন। এবং তিনি সবসময় আমাকে উৎসাহিত করতেন।

২) অক্ষয় কুমার : সুপারস্টার অক্ষয় কুমার তার শরীরে একটি নয় তিনটি ট্যাটু করিয়েছেন। অক্ষয় তার বাম কাঁধে তার স্ত্রী টুইঙ্কেল খান্নার ডাক নাম টিনা ট্যাটু করিয়েছেন। আর এতেই বোঝা যায় খিলাড়ি কুমার তার স্ত্রীকে কতটা ভালোবাসেন। এ ছাড়া পিঠে ছেলে আরভের নাম এবং ডান কাঁধে মেয়ে নিতারার নাম রয়েছে। অক্ষয় বিশ্বাস করেন যখন তিনি বাড়ি থেকে দূরে থাকেন তখন এসব ট্যাটুর মাধ্যমে পরিবার তার সঙ্গে থাকে।

৩) শিল্পা শেঠি কুন্দ্রা : বাজিগর খ্যাত অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি কুন্দ্রা ২০১৫ সালে তার প্রথম ট্যাটু করিয়েছিলেন। তিনি তার বাম হাতের কব্জিতে সবচেয়ে পবিত্র প্রতীক স্বস্তিকা ট্যাটু করেছেন। নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল থেকে ট্যাটুর ছবিও পোস্ট করেছিলেন তিনি।

৪) সুস্মিতা সেন : প্রাক্তন মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেন স্পষ্টবক্তা হিসেবে বিশেষ পরিচিত। তিনি আমাদের অনেকের জন্য অনুপ্রেরণা। মোট চারটি ট্যাটু রয়েছে তার শরীরে। যার মধ্যে তার কব্জির কাছে একটিতে লেখা আছে aut vim invenium aut fasium, অর্থাৎ হয় আমি রাস্তা খুঁজে নেবো আর নয়তো রাস্তা তৈরি করবো।

৫) দিয়া মির্জা : সম্প্রতি এই ট্যাটুর তালিকায় নতুন একটি নাম যুক্ত হয়েছে, সাবেক সৌন্দর্য প্রতিযোগিতা বিজয়ী দিয়া মির্জা । দিয়া তার প্রথম ট্যাটু ২০১৯ সালের জুনে করিয়েছিলেন। দেবনাগরী হরফে ‘আজাদ’ কথাটি লিখে রেখেছেন তিনি। দিয়ার কথা অনুযায়ী, তিনি বিশ্বাস করেন আমরা সবাই মুক্ত ভারতে জন্মগ্রহণ করেছি।

Related Articles

Back to top button