বিনোদনসেরা খবর

‘মেয়েদের বেলা ক্যাটফাইট, পুরুষদের ঝগড়া ডগফাইট নয় কেন’, ইন্ডাস্ট্রির লিঙ্গবৈষম্য নিয়ে মুখ খুললেন হুমা কুরেশি

‘ক্যাটফাইট’ কথাটি তো হামেশাই শুনে থাকবেন। সাধারণত মেয়েদের মধ্যে চলতে থাকা ঝগড়াঝাঁটি, বাকযুদ্ধকেই ‘ক্যাটফাইট’ বলে অভিহিত করা হয়ে থাকে। আর এই শব্দটি নিয়েই প্রবল নারাজ অভিনেত্রী হুমা কুরেশি। হুমার মতে এই শব্দটি আসলে পিতৃতান্ত্রিক মানসিকতার পরিচায়ক। সম্প্রতি এই শব্দটি নিয়ে আপত্তি জানিয়ে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েছেন অভিনেত্রী।

সিনে ইন্ডাস্ট্রির ঝগড়াঝাঁটি, কটাক্ষ, একে অপরকে ব্যঙ্গ করা এসব কোনোটাই নতুন নয়। সামনে একরকম দেখালেও পেছনের গল্পটা সম্পূর্ণ অন্যরকম। তবে এই ঝগড়াঝাঁটি, রেষারেষি এটা তো শুধু অভিনেত্রীদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। খ্যাতির শীর্ষে পৌঁছানোর ইঁদুরদৌড়ে তো সবাই সামিল থাকে। তাহলে এই লিঙ্গবৈষম্য কেন? সমালোচকদের বিরুদ্ধে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন হুমা।

অভিনেত্রী কথায়, ‘ক্যাটফাইট’ শব্দটি মহিলাদের জন্য বড্ডো অপমানজনক। শুধু মেয়েরাই ঝগড়া করে, সমাজের এই ধারণাটার বদল চান তিনি। হুমার কথায়, ‘‘ঝগড়া, মনোমালিন্য সকলের মধ্যেই হয়। একে অপরের সঙ্গে মানিয়ে নিতে না পারলেই ঝগড়া হয়। এতে কোনও লিঙ্গভেদ নেই। ছেলেরাও ঝগড়া করে। বরং ওদের মধ্যে ঝগড়াঝাঁটি অনেক বেশি হয়, এটা কোনও গুজব নয়। সে ক্ষেত্রে তো কেউ সেটাকে ‘ডগফাইট’ বলে দেগে দেন না।’’

অভিনেত্রী জানিয়েছেন যে, ইন্ডাস্ট্রিতে থাকতে গেলে মতানৈক্য হতেই পারে, একে অপরের সাথে ঠোকাঠুকিও হয়ে থাকে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, এখানে সবাই সবার প্রতিযোগী‌।‌ কোনো বিষয়ে মতপার্থক্য হয়েছে শুনলেই তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা রয়েছে বলে ভেবে নেওয়া হয়। আর তারপর তাদের মধ্যে ‘ক্যাটফাইট’ চলছে বলে গুজব রটে যায়। যার হয়তো কোনো বাস্তব অস্তিত্বই নেই– এমনটাই মত হুমা কুরেশির।

পাশাপাশি তিনি আরও বলেন যে, ‘যদি দু’জন খ্যাতনামা অভিনেত্রীর মধ্যে একে অপরকে ছাপিয়ে যাওয়ার ইঁদুরদৌড় থাকেও, তা নিয়ে যে পরিমাণ চর্চা হয়, পুরুষ অভিনেতাদের নিয়ে সেই পরিমাণ চর্চা হয় না। অথচ তাদের মধ্যেই প্রতিযোগিতা বেশি।’ হুমার আরও সংযোজন, ‘‘দুই পুরুষ অভিনেতাকে এক সঙ্গে একটি ছবির মুখ্য ভূমিকায় সুযোগ দেওয়া খুব কঠিন। কারণ, তাঁরা সব সময় ভাববে কার বাইসেপ্স বেশি বড়? আমার মনে হয়, এই ব্যাপারে মেয়েদের সম্পর্কে একটা খারাপ ধারণা হয়ে আছে। আমার তো মেয়েদের সঙ্গে কাজ করতে ভালই লাগে।’’

প্রসঙ্গত, ওটিটি প্লাটফর্মে এখন বেশ চুটিয়ে কাজ করছেন তিনি। ‘মহারানি’র জনপ্রিয়তা তো এখন তুঙ্গে। এই ওয়েব সিরিজের পর তাকে দেখা যাবে ‘ডবল এক্সেল’ ছবিতে। ছবিতে সোনাক্ষী সিনহার সাথে স্ক্রিন শেয়ার করেছেন হুমা। এছাড়াও ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেছেন জাহির ইকবাল। সোনাক্ষীর সঙ্গে কাজের প্রসঙ্গে অভিনেত্রী জানান, তারা দুজনেই খুব ভালো বন্ধু। আর এটা যদি আমি হাসিমুখে বলতে পারি, তা হলে আমাদের এই সিনেমার জগতে মেয়েরা ছেলেদের চেয়ে অনেক কম নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে বলেই আমার মনে হয়।’’ তাহলেই ভাবুন ‘ক্যাটফাইট কথাটা পুরুষতান্ত্রিক কি না? প্রশ্ন হুমার।

Related Articles

Back to top button