বিনোদনসেরা খবর

অদম্য জেদ আর পরিশ্রমের প্রতিমূর্তি মিতা চ্যাটার্জী, স্বামী মারা যাওয়ার পর একা হাতে সংসার, অভিনয় সামলাতেন অভিনেত্রী

টলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় মুখ মিতা চ্যাটার্জী। পোশাকি নাম এটা হলেও আজও মানুষ তাকে কালজয়ী ধারাবাহিক ‘জন্মভূমি’ র পিসিমা বলেই চেনে। একটা সময় টেলিভিশন দাঁপিয়ে বেড়ালেও বিগত আড়াই বছর ধরে পর্দা থেকে দূরেই রয়েছেন তিনি। শেষ অভিনয় করেছিলেন জি বাংলার ‘ত্রিনয়নী’ ধারাবাহিকে।

তবে দীর্ঘদিন তাকে পর্দায় না দেখে বেশ চিন্তিত ছিলো অনুরাগীরা। তিনি কেন আর কাজ করছেননা এই নিয়ে বারংবার প্রশ্ন উঠে এসেছে ভক্তদের থেকে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিলেন এই বর্ষীয়ান অভিনেত্রী।

প্রসঙ্গত করোনা সংক্রমণের কারণেই গত কয়েকবছর ধরে নিজেকে আড়ালে রেখেছেন মিতা চ্যাটার্জী। লাইট ক্যামেরা অ্যাকশনের জগৎ থেকে দূরে থাকলেও থেমে নেই তার দুনিয়া। বেশ লেখালেখির কাজ করে চলেছেন তিনি। অবাক হওয়ার কিছু নেই, অভিনয় থেকে লেখালেখি সবেতেই সমান পারদর্শী তিনি।

প্রসঙ্গত, অনেকটা ছোটো বয়সেই পা রেখেছিলেন এই ইন্ডাস্ট্রিতে। সেই সময় তার নাম ছিলো নমিতা চ্যাটার্জি। তবে একই নামের আরও দুই নায়িকা থাকায় যাতে নাম বিভ্রাট না ঘটে তাই ছোটো করে মিতা করে দিয়েছিলেন স্বয়ং অনুপ কুমার। সাল ১৯৪৭-এ হেমেন বসু পরিচালিত ‘ভুলি নাই’ ছবিতে শিশু শিল্পী হিসেবে প্রথম দেখা যায় তাকে।

মানুষ তাঁকে অভিনেত্রী, হিসেবে চিনলেও গান, নাচ, খেলাধুলা এবং পড়াশোনা এককথায় বলতে গেলে অর রাউন্ডার ছিলেন তিনি। মূলত বাবার কথাতেই মিতাদেবী গান শিখেছিলেন রাজেন বসুর কাছে আর নাচ শিখেছিলেন শিক্ষক মণি শঙ্কর মহাশয়ের কাছে। এছাড়াও একবার এক সাক্ষাৎকারে তিনি নিজেই জানিয়েছিলেন যে, একসময় তিনি টেবিল টেনিস থেকে শুরু করে সাঁতার সবটাই শিখেছেন।

ভাষার কথা বললে তাতেও একাধিক ভাষার উপর দখল রয়েছে তাঁর। বাংলা, ইংরেজি এবং হিন্দির পাশাপাশি নেপালী ভাষাতেও বেশ দক্ষ তিনি। করবো এবং পারবো এটাই ছিলো অভিনেত্রীর জীবনের মূলমন্ত্র। এমতাবস্থায় কাজ পরিবার নিয়ে ব্যস্ততাময় জীবনে ঘটে যায় এক অঘটন।

বিয়ের বছর খানেক পর হঠাৎই একদিন সেলিব্রাল স্ট্রোক হয়ে মিতাদেবীকে একা করে দুনিয়া ছেড়ে চলে যান তাঁর স্বামী শ্রী বিমল কুমার চট্টোপাধ্যায়। পেশায় সরকারি কলেজের অধ্যাপক ছিলেন তিনি। স্বামীহারা অবস্থায় একরত্তি মেয়েকে কোলে নিয়েই কাজে ফেরেন তিনি। এরপরেও জীবনে এসেছে বহু ঝড় ঝাপটা, কিন্তু যাই হয়ে যাক, থেমে থাকায় বিশ্বাসী নন মিতা চ্যাটার্জী।

Related Articles

Back to top button