বিনোদনসেরা খবর

‘এক আকাশের নিচে’র পাখি থেকে আজকের ‘সহচরী’, ছোটপর্দায় দুর্দান্ত অভিনয়ের পরেও বড়পর্দায় জায়গা হল না কনীনিকার

অতি দীর্ঘ সময় ধরে বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে রয়েছেন অভিনেত্রী কনীনিকা বন্দোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই দীর্ঘ ২২ টা বসন্ত কাটিয়ে ফেলেছেন তিনি এখানে। প্রতিভাবান এই অভিনেত্রী নিজেকে টলিউডের রত্ন হিসেবে প্রমাণিত করেছেন বারংবার। সাধারন জনগনের মধ্যে তিনি হয়ে উঠেছেন এক প্রিয় সহচরী! সিনেমা হোক বা ধারাবাহিক, সবেতেই সমানভাবে নিজেকে উপস্থাপিত করে যাচ্ছেন তিনি। যেখানেই যান, সেখানেই নিজের প্রতিভার ছোঁয়াতে সবকিছুকে বেশ উৎকৃষ্ট করে তোলার ক্ষমতা রাখেন কনীনিকা।

এই প্রতিভাবান অভিনেত্রী একের পর এক ধারাবাহিকে দুর্দান্ত অভিনয় করে গেলেও সীমিত থেকে গেলেন ছোট পর্দাতেই, বড়পর্দায় তাকে সেভাবে আত্মপ্রকাশই করতে দেয়ইনি ইন্ডাস্ট্রি। তবে খাঁটি জহুরীর চোখ যেমন রত্ন খুঁজে নেয় ঠিক তেমনই সিনেমা জগতের একজন তাকে চিনেছিলেন, তিনি ডিরেক্টর রবি ওঝা।

তখন সালটা ২০০০, রবি ওঝার হাত ধরেই বড় পর্দায় পা রাখেন কনিনীকা। ব্যাক আপ ডান্সারে তার অডিশন দেখে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলেন রবি ওঝা। এরপর তার হাত ধরেই তিনি ‘এক আকাশের নিচে’ তে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করার সুযোগ পান। আর সুযোগ পেয়েই তার অভিনয়, চোখ ধাঁধিয়ে দিয়েছিল দর্শকদের। এরপর আর ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।

সেই সময়ের বাংলার পুরুষদের স্বপ্ন সুন্দরী ছিলেন তিনি। রবি ওঝার হাত দিয়ে ছোট পর্দায় ‘এক আকাশের নিচে’র সাফল্যের পর, এবার তিনি পা রাখেন বড় পর্দায়। এরপর বড় পর্দাতেও নিজের আধিপত্য বিস্তার করেন তিনি। মাত্র কয়েকদিনের অভিনয়েই নিতে নেন আনন্দলোক পুরস্কার জিতে নেন। কিন্তু ওই শেষ, টিউবলাইটের মতো একবার জ্বলে উঠেই নিভে গিয়েছিল তার বড় পর্দার যাত্রা।

যদিও ছোটপর্দায় আজও একই ভাবে দেখতে পাওয়া যায় তাকে। তার শক্তিশালী চরিত্রের জোরেই হিট হচ্ছে একের পর এক ধারাবাহিক। বড় পর্দায় তাকে আর পাওয়া না গেলেও, ছোটপর্দায় মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছেন। তবে অনুরাগীদের মনে প্রশ্ন ওঠে, আজও কি তিনি তার যোগ্য সম্মান পেয়েছেন? কেন এভাবে অচিরেই হারিয়ে গেলেন তিনি?  প্রশ্ন রয়েছে অনেক, কিন্তু এসব প্রশ্নের উত্তর আজও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

Related Articles

Back to top button