বিনোদনসেরা খবর

প্রাক্তন প্রেমিকের জন্য রিজেক্ট করেছিলেন সুপারহিট ছবির অফার, আজও সেই নিয়ে আফশোস করেন মহেশ কন্যা পূজা ভাট

নব্বই দশকের বলিউডি ছবির যারা ভক্ত, ‘আশিকি’ ছবি তাদের মনে থাকার কথা। চলচ্চিত্রের ভাষায় যাকে বলে ‘মিউজিক্যাল হিট ফিল্ম’, তা–ই ছিল আশিকি। ছবিতে মূখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন রাহুল রায় এবং অনিতা আগরওয়াল। আন্নু চরিত্রে দেখা গিয়েছিলো অনিতাকে। কিন্তু খুব কম মানুষই জানেন যে এই আন্নু চরিত্রটির জন্য পরিচালকের প্রথম পছন্দ অনিতা ছিলোনা, বরং প্রথম পছন্দ ছিলেন মহেশ কন্যা পূজা ভাট। কিন্তু শোনা যায় সেই সময় নিজের ব্যক্তিগত সম্পর্কের কারণে ছবিটিকে প্রত্যাখান করেন তিনি।

মিডিয়া সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে জাগরণ চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেন পূজা। সেখানেই ‘আশিকি’ ছবি থেকে সরে দাঁড়ানোর কারণ সম্পর্কে অবগত করেন সবাইকে। পূজার কথায় জানা যায়, তার টাকা মুকেশ ভাট যখন ছবির অফার নিয়ে তার বাড়িতে যায় তখন তিনি সাফ মানা করেন। কথা প্রসঙ্গে পূজা আরো জানান যে, মাত্র ১২ বছর বয়সেই একজনের প্রেমে পড়েছিলেন তিনি। যখন তার বয়স ১৬ তখন থেকে একে অপরকে ডেট করতে শুরু করেন তারা। এরপর পূজার রূপোলী পর্দায় অভিনয়ের সূচনা ঘটে ১৭ বছর বয়সে, ১৯৯৯ সালে মহেশ ভাট পরিচালিত ড্যাডি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি। এর পরের বছরই ‘দিল হ্যায় কি মানতা নেহি’ ছবির অফার আসে তার কাছে।

কিন্তু সেইসময় পর্দার এপারে ঘটে সম্পূর্ণ ভিন্ন ধরনের ঘটনা। পূজার তৎকালীন প্রেমিক তাকে জানায় যে পূজা যদি তাকে বিয়ে করতে চায় তাহলে তাকে বলিউড থেকে সম্পূর্ণ রূপে দূরে সরে আসতে হবে। তিনি কখোনোই কোনো অভিনেত্রীকে বিয়ে করবেন না। প্রেমে অন্ধ পূজা তখন সেই কথাই অক্ষরে অক্ষরে মেনে নেয়। পূজা জানান তিনি তার প্রেমকে বাঁচিয়ে রাখতে সবকিছু করতে পারেন।

এমতাবস্থায় পরিচালক মুকেশ ভাট ছবির সাইনিং অ্যামাউন্ট নিয়ে তার বাড়ি গেলে তিনি ছবি থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা সাফ জানান। মুকেশ তার বাবা মহেশ ভাটকে ডেকে বিস্তর বোঝানোর চেষ্টা করলেও, যে মন প্রেমে মজেছে তাকে বোঝানো কি এতোই সহজ। যদিও পরবর্তীকালে সেই সম্পর্ক আর পরিণতি পায়নি। তবে আজকের দিনে দাঁড়িয়ে পূজার মনে হয়, আবেগের বশবর্তী হয়ে ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। এই সিনেমাটা তার জীবনের অন্যতম সেরা অফার ছিলো।

Related Articles

Back to top button