বিনোদনসেরা খবর

বিলাসবহুল বাংলো থেকে ৩৮০ কোটি নগদ, রইল বলিউডের ৬ টি হাইপ্রোফাইল ডিভোর্সের খরচ

প্রেম বিচ্ছেদ যেন বলিউডের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তারা ঠিক যেমন হঠাৎ করে বিয়ে করেন তেমনই হঠাৎ হঠাৎ ডিভোর্সও নিয়ে নেন। তাদের ছবির মতো ডিভোর্সের খরচও আকাশছোঁয়া। কোনো কোনো ডিভোর্স তো এতোটাই ব্যয়বহুল যে ঐ টাকায় সাধারণ মানুষের আগামী পাঁচ প্রজন্ম বসে খেতে পারবে। এমনই কিছু হাই প্রোফাইল ডিভোর্সের কথা বলবো আজকের প্রতিবেদনে‌।

১) অমৃতা সিং এবং সাইফ আলি খান : অমৃতা সিং এবং সাইফ আলি খান তাদের ১৩ বছরের বিবাহিত জীবনের ইতি টানেন। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, অমৃতা সাইফের কাছ থেকে ডিভোর্সের বিনিময়ে ৫ কোটি টাকা পেয়েছিলেন।

২) সামান্থা রুথ প্রভু এবং নাগা চৈতন্য : কোনো কোনো মিডিয়া দাবি করেছে যে ডিভোর্সের জন্য ২৫০ কোটি টাকা দাবি করেছিলো সামান্থা। যদিও এই সব কথাকে মিথ্যা বলে দাবি করে অভিনেত্রী বলেছেন নাগা চৈতন্যের থেকে একটা পয়সাও নিতে চান না তিনি।

৩) করিশমা কাপুর এবং সঞ্জয় কাপুর : করিশ্মা এবং সঞ্জয়ের বিয়ে ভাঙে ২০১৪ সালে। এরপর থেকেই, সঞ্জয় করিশমাকে একটি বাড়ি, ১৪ কোটির বন্ড এবং প্রতি মাসে ১০ লাখ টাকা সন্তানদের জন্য দেন।

৪) হৃতিক রোশন এবং সুজান : হৃতিক রোশন এবং সুজানের বিবাহবিচ্ছেদকে বলিউডের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ডিভোর্স হিসাবে বিবেচনা করা হয়। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ডিভোর্সের বদলে সুজানকে ৩৮০ কোটি টাকা দিয়েছিলেন হৃতিক।

৫) আরবাজ খান এবং মালাইকা অরোরা : ২০১৭ সালে আরবাজ খানের সঙ্গে মালাইকা অরোরার বিয়ে ভেঙে যায়। মালাইকা অরোরা আরবাজের কাছে ১০ কোটি টাকা ভরণপোষণ চেয়েছিলেন।

৬) ফারহান আখতার এবং অধুনা আখতার : ফারহান আখতারের প্রথম বিয়ে হয়েছিল অধুনা আখতারের সাথে। খুব বেশিদিন টেকেনি এই বিয়ে। ডিভোর্সের পর ফারহান অধুনা ও তার মেয়েদের একটি বাংলা দিয়েছিলেন। পাশাপাশি প্রতি মাসে ফরহান বড় অঙ্কের টাকা খোরপোশ দেন প্রাক্তন স্ত্রী এবং তাঁদের সন্তানদের জন্য।

Related Articles

Back to top button