বিনোদনসেরা খবর

‘ছত্রাক’ সিনেমা নিয়ে শুরু হয়েছিল বিতর্ক, সুযোগ পেলে আবার নগ্নদৃশ্যে অভিনয় করব! অকপট পাওলি দাম

পাওলি দাম, সাহসী দৃশ্য করা অভিনেত্রীদের তালিকায় তার নাম প্রথমে থাকবে। এমনই এক সাহসী দৃশ্য তিনি নিজেকে তুলে ধরেছিলেন ‘ছত্রাক’ সিনেমাতে। যদিও এই ছবিটি নিয়ে বেশ বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল। তথাকথিত বাঙালিরা হঠাৎ করে নিউকামারকে এরকম ভাবে দেখতে অভ্যস্ত হয়নি। এমনকি তখন বাংলা সিনেমা এত বেশি সাবলীল ছিল না। সেই ছত্রাক সিনেমার ১০ থেকে ১২ বছর হয়ে যাবার পরও এখনো পাওলি দামের সেই দৃশ্য দেখার জন্য ইন্টারনেটে খোজাখুজি করেন মানুষেরা।

তবে পাওলি কিন্তু এরকম সাহসী দৃশ্য অভিনয় খুব সাবলীলভাবে করতে পেরেছিলেন। নিজেকে অন্যভাবে তুলে ধরতে চেয়েছিলেন তিনি। ছোটবেলা থেকেই বিভিন্ন ধরনের সিনেমা দেখার অভ্যাস রয়েছে তার। ১৯৯২ সালে ব্রিটিশ পরিচালক লুই মাল-এর তৈরি ‘ড্যামেজ’ ছবি দেখে এই ধরনের চরিত্রে অভিনয় করার সাহস পেয়েছিলেন তিনি। আর এরপরে ছত্রাক সিনেমার অফার আসে তার কাছে। শ্রীলংকার নামি পরিচালক এই ছত্রাক সিনেমা তৈরি করেছিলেন।

যেটির ইংরেজি নাম ছিল ‘দা মাশরুম’। এই সিনেমা কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, টরেন্টো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মত একাধিক চলচ্চিত্র উৎসবে বেশ প্রশংসিত হলেও বাংলার বুকে প্রশংসা তো দূরের কথা, শুরু হয়েছিল অভিনেত্রীকে নিয়ে তুমুল বিতর্ক। এই বিতর্ক প্রসঙ্গে পাওলির মত, সবসময় খারাপ কথা না বলে ভালো কথা তো বলা যায়! সেই ছত্রাক সিনেমায় তার অভিনয়ের প্রশংসা কেউ না করে বরং নগ্ন দৃশ্য নিয়ে আলোচনা বেশি হয়েছিল যেটা অবাক করেছিল পাওলিকে।

তবে তিনি এসব নিয়ে কখনওই মাথা ঘামাননি। কারণ তিনি কখনোই ভাবতে পারেননি তিনি অভিনেত্রী হবেন। উচ্চশিক্ষিত পাওলি শিক্ষা জগতের সঙ্গে যুক্ত থাকতে চেয়েছিলেন। বর্তমানে টলিউডের সাথে সাথেই বলিউডেও দাপিয়ে কাজ করে চলেছেন তিনি। সেখানে তার অভিনয়ের প্রশংসা বারংবার হয়। অভিনেত্রী নিজেই বলেছেন যে কোন চরিত্রের যদি আবার নগ্ন দৃশ্যে অভিনয় প্রয়োজন রয়েছে এবং সেই চরিত্রটি যদি তার মন আত্মা ও শরীর দিয়ে তিনি গ্রহণ করতে পারেন, তবে আবারও এই নগ্ন দৃশ্যে অভিনয় করতে রাজি থাকবেন পাওলি দাম।

Related Articles

Back to top button