বিনোদনসেরা খবর

নওয়াজ থেকে বোমান ইরানি, বুড়ো বয়সে অভিনয়ে এসে বলিউড কাঁপিয়েছেন এই ৭ তারকা

প্রতিভার যেমন কোনও বয়স হয় না। ঠিক তেমনি কোন মানুষ কখন সফল হবেন সেটারও কোনও বয়স হয় না। খুব তাড়াতাড়ি যেমন কোন মানুষ সফল হয়ে যান আবার কারো ক্ষেত্রে একটা দীর্ঘ সময় লাগে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে। বয়স যত বেশিই হোক না কেন সফলতার ক্ষেত্রে বয়স কোনো বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না। আজকের এই প্রতিবেদনে বলিউডের এমন কিছু তারকাদের কথা বলব যারা বেশি বয়সে অভিনয় করে বলিউডে সফল অভিনেতা-অভিনেত্রীর শিরোপা পেয়েছেন।

১)পীযূষ মিশ্র- তিনি একজন অভিনেতা ছাড়াও লেখক, গায়ক। ১৯৮৮ সালে একটি টিভি সিরিয়ালের মাধ্যমে তিনি তাঁর ক্যারিয়ার শুরু করেন। কিন্তু শুরু থেকেই তিনি সফল হয়ে যাননি। ২০১২ সালে গ্যাংস অফ ওয়াসিপুর তার অভিনয় দেখে মুগ্ধ হন দর্শকেরা। সেই সময় তার বয়স ছিল ৫০ এর কাছাকাছি। এখন বলিউডে বহু ছবিতে দারুন অভিনয় করছেন এই অভিনেতা।

২) কুমুদ মিশ্র- ইনি একজন থিয়েটার শিল্পী ছিলেন। ১৯৯৬ সালে শ্যাম বেনেগাল এর ছবির মাধ্যমে বলিউডে যাত্রা শুরু করেন। এরপর সেভাবে তাকে আর কাজ করতে দেখা যায়নি। তবে ২০১১ সালে রণবীর কাপুরের ‘রকস্টার’ ছবিতে তার চরিত্র থেকে তিনি জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করেন। সেই সময় তার বয়স ছিল প্রায় ৪০ বছর।

৩) অমরেশ পুরী- বলিউডের সবথেকে জনপ্রিয় খলনায়ক হিসেবে অমরেশ পুরির নাম আজীবন থেকে যাবে। ১৯৭০ সালে যখন তার প্রায় ৪০ বছর বয়স ছিল তখন প্রথম চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেছিলেন। এরপর ধীরে ধীরে নিজেকে গড়ে তুলেছেন তিনি। বলিউডের সেরা খলনায়ক এর জায়গা জিতে নিয়েছেন অমরেশ পুরী। মিস্টার ইন্ডিয়াতে তার মোগাম্বো চরিত্রটি বলিউডের সবচেয়ে বড় ভিলেন চরিত্র হয়ে ওঠে।

৪) নীনা গুপ্তা – ১৯৮১ সাল থেকে তিনি অভিনয় জগতের সঙ্গে যুক্ত। এরপর বহু ছবিতে কাজ করেছেন তিনি। ২০১৮ সালে ‘বাধাই হো’ ছবিতে তাঁর অসাধারণ অভিনয়ের জন্য তিনি জনপ্রিয়তা পান। সেই সময় তার বয়স ছিল প্রায় ৫৯ বছর। এখন বলিউডের বহু ছবিতে দেখা যাচ্ছে তাকে।

৫) নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী- বহুদিন ধরে বলিউডে কাজ করছেন তিনি। নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য অনেক লড়াই লড়তে হয়েছে তাকে। ১৯৯৯সালে আমির খানের ‘সারফারোশ’ ছবিতে মাত্র এক মিনিটের জন্য দেখা গিয়েছিল তাকে। এরপর কঠোর পরিশ্রমের পর ২০১২ সালের গ্যাংস অফ ওয়াসেপুর অভিনয় করে রাতারাতি তারকা হয়ে যান তিনি। এখন বলিউডের অন্যতম প্রতিভাবান অভিনেতা হলেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী। তখন তার বয়স ছিল প্রায় ৩৮ বছর।

৬) বোমান ইরানি- অভিনয় জগতে তিনি বেশ দেরী করেই প্রবেশ করেছেন। ৪৪ বছর বয়সে রাজু হিরানির ‘মুন্নাভাই এমবিবিএস’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। এরপর আর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। একের পর এক সিনেমায় অভিনয় দর্শকদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন তিনি।

৭) রনিত রায়- ১৯৯৯ সালে ‘জান তেরে নাম’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন। কিন্তু সেই ছবি তাকে সেভাবে সাফল্য এনে দিতে পারেনি। এরপর আবার ছোটপর্দায় দীর্ঘদিন কাজ করেন তিনি। ৪০ বছর বয়সে বড় পর্দায় সফলতা অর্জন করেছেন এই অভিনেতা। এখন বলিউডের বহু ছবিতে চুটিয়ে কাজ করতে দেখা যাচ্ছে তাকে।

Related Articles

Back to top button