অন্যান্যবিনোদনসেরা খবর

বুড়ো থেকে জোয়ান, ভারতের এই গ্রামের সকলেই নাকি ইউটিউবার, ইউটিউব থেকেই কামায় লাখ লাখ টাকা!

আজকের ডিজিটাল যুগে প্রতিটি মানুষের হাতেই স্মার্টফোন। আর তার সাথে ভারতে জিও লঞ্চ হওয়ার পর থেকে যেভাবে ইন্টারনেট সহজলভ্য হয়ে উঠেছে তাতে ইন্টারনেট ব্যাবহার করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়াই বেশ মুশকিল। রোজকার বিনোদন থেকে শুরু করে দৈনন্দিন খবরাখবর সবকিছুই এখন হাতের মুঠোফোনে উপলব্ধ। এমতাবস্থায় এমন এক গ্রামের সাথে পরিচয় করাবো যারা এই ইন্টারনেট ব্যবহার করেই প্রতি মাসে লাখ লাখ টাকা উপার্জন করছেন।

ভারতের ছত্তিশগড়ের তুলসী গ্রামে প্রায় তিন হাজার মানুষের বাস। জেনে অবাক হবেন যে, এই গ্রামের কমবেশি সবাই ইউটিউবার। ছত্তিশগড়ের রাজধানী রায়পুর থেকে ৪৫ কিঃমিঃ দূরে অবস্থিত এই গ্রামের প্রতিটি বাড়িতেই রয়েছে শিল্পসত্তা। আর এই গ্রাম ভর্তি ইউটিউবারের কারণেই গ্রামের নাম হয়েছে ইউটিবারদের গ্রাম।

প্রতিটি বাড়িতে ঢুঁ মারলেই দেখা মিলবে এক একজন কমেডিয়ানের। এরা সবাই মূলত কমেডি ভিডিও বানিয়ে থাকে। ভারতের সবচেয়ে বড়ো কমেডি শো ‘দ্য কপিল শর্মা শো’ থেকে অনুপ্রেরণা নিয়েই পথ চলতে শুরু করেছে এই গ্রামের যুবকরা। এখন এই গ্রামের খ্যাতি এমন ছড়িয়ে গেছে যে আশেপাশের গ্রামের বাসিন্দারা গ্রামটিকে “লাফটার চ্যাম্পিয়ন”-দের গ্রাম নামে চিহ্নিত করেছেন।

জানা গেছে এই গ্রামে প্রায় তিন হাজার মানুষ বসবাস করেন যার মধ্যে এক হাজার মানুষ অভিনয়ের সাথে যুক্ত। চাকরি আর পড়াশোনার পাশাপাশি ইউটিউবটাকেও তারা বড্ডো সিরিয়াসলি নেয়। এতে রোজগারও হচ্ছে ভালো। মূলত, গ্রামের বেশিরভাগ যুবকেরই নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে। যদিও তাদের মধ্যে অল্প কয়েকজনই সফলতা পেয়েছেন।

অভিনয়ের প্রতি এক অনন্য বন্ধনে জুড়ে রয়েছে এই গ্রামের মানুষজন। “নিগমা ছত্তিশগড়িয়া” চ্যানেলের শিল্পী সন্দীপ সাহুর মতে, “আমাদের গ্রামের মানুষ প্রথম থেকেই শিল্পের সঙ্গে যুক্ত। রামলীলা, নাটক ইত্যাদির মাধ্যমে যুবক থেকে বয়স্ক সবাই অভিনয়ে পারদর্শী হয়ে উঠেছেন। কিন্তু সঠিক প্ল্যাটফর্ম না পেয়ে তরুণরা এই পদক্ষেপ বেছে নিয়েছেন এবং ইউটিউবকে নিজের প্রতিভা বিকাশের মাধ্যম করে তোলেন।”

‘নিগমা ছত্তিশগড়িয়া’ ছাড়াও ‘বিইং ছত্তিশগড়িয়া’ নামক চ্যানেলটিও ব্যাপক নাম করেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। চ্যানেলগুলির সাবস্ক্রাইবার সংখ্যাও আকাশছোঁয়া। ইতিমধ্যেই গ্রামের ১২ টি ইউটিউব চ্যানেলে আবার ইউটিউবের Monetization ও শুরু হয়ে গিয়েছে। তবে এখানকার আরো একটি বিশেষত্ব হলো এই সমস্ত ইউটিউবার শুধু কমেডি ভিডিও বানিয়ে থাকেন এবং এর পেছনেও রয়েছে বিশেষ কারণ।

এই প্রসঙ্গে তুলসি গ্রামের জয় ভার্মা নামের এক যুবক জানান যে, “আমরা ‘বিইং ছত্তিশগড়িয়া’ নামের ইউটিউব চ্যানেলটি চালাই। এর আগে তুলসিতে, ২০১১ সাল নাগাদ তরুণরা কোন ধরণের ভিডিওকে প্রাধান্য দেওয়া উচিত তা বুঝতে পারত না। কিন্তু, পরে আমরা বুঝেছি যে, কমেডি ভিডিওগুলি বেশি সফল। এমতাবস্থায়, “কৌন বনেগা ক্রোড়পতি”-র আদলে একটি কমেডি ভিডিও তৈরি করা হয়। যা মানুষ খুব পছন্দ করেছে।” গ্রামে বসেই তারা যেভাবে রোজগার করছেন তা সত্যিই বেশ প্রশংসনীয়।

Related Articles

Back to top button