অন্যান্যসেরা খবর

বিমানে ফার্স্ট ক্লাস, বিজনেস ক্লাস এবং ইকোনমিক ক্লাসের পার্থক্য কী জানেন? রইল অজানা তথ্য

আপনি কি প্লেনে ভ্রমণ করতে অভ্যস্ত? তা যদি না হয় তবে জীবনে একবার হলেও বিমানে চড়ার ইচ্ছে থাকবেই। পাশাপাশি কখনো না কখনো আপনার মনে বিমান সম্পর্কে এই প্রশ্নগুলিও এসে থাকবে। বিমানের মধ্যে বিজনেস ক্লাস এবং ইকোনমিক ক্লাস এই দুটো টার্ম তো আমরা প্রায়শই শুনে থাকি। কিন্তু কী এমন পার্থক্য এই দুটির। চলুন জেনে নিই বিস্তারিত।

বিমান ভ্রমণ করার আগে অবশ্যই বিজনেস ক্লাস, ফার্স্ট ক্লাস এবং ইকোনমিক ক্লাস সম্পর্কে জেনে নেওয়া জরুরী। যাতে আপনি নিজের বাজেট, সুবিধা, অসুবিধা বুঝে টিকিট কাটতে পারেন।

১) ইকোনমি ক্লাস : প্রথমেই প্লেনের ইকোনমি ক্লাসের কথা বলি কারণ বিমানে যাতায়াতের জন্য যারা এই শ্রেণীটি বেছে নেন তাদের বেশিরভাগই মধ্যবিত্ত, কারণ আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষই মধ্যবিত্ত শ্রেণীর পর্যায়ে পড়ে। সচরাচর তারা ইকোনমিক ক্লাসকেই অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে। এর প্রধান কারণ ইকোনমি ক্লাসের ভাড়া বিজনেস ক্লাস ও ফার্স্ট ক্লাসের ভাড়ার চেয়ে কম। একে তৃতীয় শ্রেণীও বলা হয়।

কম ভাড়ার কারণে, ইকোনমিক ক্লাসে ফার্স্ট ক্লাস এবং বিজনেস ক্লাসের চেয়ে একটু কম সুবিধা পাওয়া যায়। ইকোনমি ক্লাসে ভ্রমণের সময় খাবার (নিরামিষ বা আমিষ), বালিশ, ম্যাগাজিন, পাশাপাশি সিটের সামনে একটি টিভির মতো সুবিধা দেওয়া হয়।

২) বিজনেস ক্লাস : বিজনেস ক্লাসের যাত্রীদের ভ্রমণের সময় খুব ভালো সুবিধা দেওয়া হয়। এই ক্লাসের যাত্রীদের জন্য বিশেষ বিজনেস ক্লাস লাউঞ্জও দেওয়া হয়, যেখানে খাবারের সামগ্রী ছাড়াও ম্যাগাজিন, সংবাদপত্র, ইন্টারনেট সুবিধা পান, পাশাপাশি পরিবেশিত খাবারের মানও চমৎকার।

ইকোনমি ক্লাসের আসনের চেয়ে বিজনেস ক্লাসের আসনগুলো বড় এবং আরামদায়ক। এটি ইকোনমিক এবং বিজনেস ক্লাসের মধ্যে প্রধান পার্থক্য। এছাড়া কিছু বিমানে যাত্রীদের শুয়ে ঘুমানোর সুবিধাও দেওয়া হয়।

৩) ফার্স্ট ক্লাস : ইকোনমি ক্লাস এবং বিজনেস ক্লাসের তুলনায় ফার্স্ট ক্লাসের ভাড়া প্রায় তিন থেকে চার গুণ বেশি। জানিয়ে রাখি ন্যাশনাল ফ্লাইটের তুলনায় ইন্টারন্যাশনাল ফ্লাইটের ভাড়ার পার্থক্য আবার আরো বেশি। যেকোন প্লেনেই সামনের দিকে একটা ফার্স্ট ক্লাস কেবিন থাকে। ব্যয়বহুল হওয়ায় এতে সুযোগ-সুবিধা খুব ভালোভাবে দেওয়া হয়।

যেহেতু ফার্স্ট ক্লাসে সাধারণত বড়ো সেলিব্রেটি এবং শিল্পপতিরাই ভ্রমণ করে থাকেন তাই তাদের প্রাইভেসির পাশাপাশি আরও বেশি ঘুমানোর জায়গা, ব্যক্তিগত ওয়াশরুম, ওয়াই-ফাই সুবিধার পাশাপাশি পছন্দের খাবারের মেনু বেছে নেওয়ার সুবিধা দেওয়া হয়। খাবারের মান ইকোনমি ক্লাস এবং বিজনেস ক্লাসের চেয়ে ভালো যা অভিজ্ঞ শেফ দ্বারা প্রস্তুত করা হয়।

প্রসঙ্গত, এয়ার ইন্ডিয়ার ফার্স্ট ক্লাস কেবিনে মাত্র ১২ জন যাত্রী থাকতে পারে। তবে বেশিরভাগ এয়ারলাইন্স তাদের বিজনেস ক্লাস এবং ফার্স্ট ক্লাস একসাথে মার্জ করেছে কারণ ফার্স্ট ক্লাস বিজনেস ক্লাসের চেয়ে বেশি জায়গা দখল করে থাকে।

Related Articles

Back to top button