বিনোদনসেরা খবর

‘বয়কট’ট্রেন্ড নয়, শামশেরার গল্পের জন্যই মুখ থুবড়ে পড়েছে ছবি, ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ মুক্তির আগেই বিষ্ফোরক রণবীর কাপুর

গত জুলাই মাসে মুক্তি পেয়েছিলো রণবীর, বাণী এবং সঞ্জয় দত্ত অভিনীত মেগা বাজেটের ছবি ‘শামশেরা’। বিগ বাজেটের এই ছবিটির সর্বসাকুল্যে আয় ছিলো মাত্র ৬৪ কোটি টাকা। দীর্ঘ ৪ বছর পর রণবীরের কামব্যাক ছবি যে এরকম মুখ থুবড়ে পড়বে, সেটা একেবারেই কল্পনাতীত। সুপারফ্লপ এই ছবিটিকে নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায়। নেটিজেনদের একাংশের দাবি বয়কট ট্রেন্ডের কারণেই নাকি ছবিটি মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেনি।

সম্প্রতি ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ নিয়েও প্রবল বয়কটের ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এমতাবস্থায় সকলেরই প্রশ্ন যে, তবে কি এই বয়কট ট্রেন্ড ‘ব্রহ্মাস্ত্র’-কেও সুপার ফ্লপের তকমা দিয়েই ছাড়বে? এবার এটা নিয়েই মুখ খুললেন স্বয়ং রণবীর কাপুর।

গত বুধবার ছবির প্রচারে দিল্লিতে পৌঁছে গেছিলেন অভিনেতা। সাথে ছিল স্ত্রী আলিয়া এবং পরিচালক অয়ন মুখার্জি। সেখানেই এক সাংবাদিক সম্মেলনে নিজের মতামত রাখেন রণবীর। যেভাবে বলিউডের প্রতি নেগেটিভিটি বেরিয়ে আসছে তাতে কি বলিউড কোনোদিন আর মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে? এই প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে ‘শামশেরা’র ব্যর্থতার প্রসঙ্গে টেনেন আনেন রণবীর।

অভিনেতার কথায়, ‘আমি নিজের উদাহরণ দিয়ে বলি। আমি অন্যের ছবি নিয়ে বলতে চাইব না। আমার একটা ছবি দেড় মাস আগে মুক্তি পেয়েছে, শামশেরা। এই ছবি নিয়ে আমি কোনও নেতিবাচকতা অনুভব করিনি।’ তিনি আরও বলেন, ‘যদি কোনও ছবি বক্স অফিসে না চলে, তাহলে বুঝতে হবে দর্শক সেই ছবি পছন্দ করেনি। দিনের শেষে সবটাই নির্ভরশীল বিষয়বস্তুর উপর। যদি তুমি ভালো ছবি তৈরি করো, মানুষের মনোরঞ্জন করো, তাহলে নিশ্চয় তাঁরা সিমেমা হলে গিয়ে তোমার ছবি দেখবে।…. যদি একটা ছবি ব্যর্থ হয়, তাহলে সেটা অন্য কোনও কারণের জন্য নয়। ব্যর্থতার একমাত্র কারণ ছবির বিষয়বস্ত বাজে ছিল। আমার মনে হয় এটাই একমাত্র সঠিক উত্তর’।

প্রসঙ্গত, করণ মালহোত্রার এই ছবিটির মোট বাজেট ছিলো প্রায় ১৫০ কোটি টাকা। যশরাজ ফিল্মসের ব্যানারে নির্মিত এই ছবির আয় আসলেই হতাশাজনক। কোনোরকমে ৬৪ কোটির গণ্ডি ছুঁতে সক্ষম হয়েছিলো রণবীরের ‘শামশেরা’। রণবীরের দীর্ঘ কেরিয়ারের অন্যতম ডিজাস্টারের মধ্যে একটি ছিলো এটি।

এদিকে বহুল চর্চিত ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ মুক্তি পেতে আর মাত্র কয়েকটা ঘন্টা বাকি। তারমধ্যেই বিতর্ক ঘিরে ধরেছে ছবিটিকে। গত মঙ্গলবারই মহাকাল মন্দিরে বিগ্রহ দর্শন করতে গেলে বাধার সম্মুখীন হতে হয় গোটা টিমকে। মানুষের দাবি হিন্দুবিরোধী তারকাদের মন্দিরে প্রবেশ করার কোনো অধিকার থাকতে পারেনা। সবে মিলিয়ে বিগ বাজেটের এই ছবি নিয়ে বেশ দ্বন্ধে রয়েছে বিশেষজ্ঞরা।

Related Articles

Back to top button