বিনোদনসেরা খবর

‘আগে ওরা সারারাত ডেনড্রাইটের নেশা করত, এখন পড়ে!’ পথশিশুদের পাশে দাঁড়িয়ে আবেগপ্রবণ শ্রুতি দাস

বাংলা টেলিভিশন জগতের একজন জনপ্রিয় মুখ খোলেন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস। অভিনয় জগতে তার প্রবেশ অল্প কিছুদিনের হলেও অসাধারণ অভিনয় গুণে তিনি দর্শকদের বিপুল ভালোবাসা পেয়েছেন। তার প্রথম সিরিয়াল ‘ত্রিনয়নী’ দুর্দান্ত সাফল্যের পর ‘দেশের মাটি’তে নোয়া চরিত্রে দর্শকদের মন কাড়েন তিনি। যদিও এই ধারাবাহিক শেষের পর এখনো নতুন কোনো ধারাবাহিকে দেখা যায়নি তাকে।

তবে শ্রুতি কিন্তু কখনোই অভিনেত্রী হতে চাননি, বরাবরই নাচকে নিয়ে ক্যারিয়ার গড়তে চেয়েছিলেন তিনি। এই নাচের মাধ্যমে অভিনয়ের সুযোগ আসে তার। এরপরে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি শ্রুতিকে। জনপ্রিয় অভিনেত্রী হবার সত্বেও তিনি একেবারেই মাটির মানুষ। মানুষের পাশে থেকে তাদের সঙ্গে মিশে সময় কাটাতেই বেশি আনন্দ খুঁজে পান তিনি। এবার ফের তার এমনই এক গুণের পরিচয় পাওয়া গেলো।

গত রবিবার বিশিষ্ট সমাজসেবী পাপিয়া করের ডাকে পথ শিশুদের পাঠশালায় গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। সেই অনাথ শিশুদের মুখে হাসি ফোটাতে মিষ্টি নিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। সারাদিন তাদের সঙ্গেই ছবি কাটান অভিনেত্রী। একসঙ্গে প্রচুর ছবিও তোলেন। আর সেসব ছবি নিজের ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেন তিনি। আর এই ছবির সাথে তিনি উল্লেখ করেছেন, “আমার বাচ্চারা সারারাত জেগে ডেন্ড্রাইটের নেশা করত,এখন সারারাত জেগে হাতের কাজ এর নেশা করে,নাচ গান করে,লেখাপড়া করে,তুমি আসবে এই আনন্দে ওরা নিজের হাতে উপহার বানিয়েছে,তুমি আসবে তো?”

এরপরে তিনি ওই বিশিষ্ট সমাজসেবীর প্রশংসা করেছেন। তিনি লিখেছেন, “আমার এক পোষ্টে Papiya Kar দি একটি কমেন্ট করেছিলেন যাতে আমি একবার অন্তত ফুল পাখিদের আসরে যাই।আমি সাতপাঁচ না ভেবে দুম করে কথা দিয়ে দিয়েছিলাম এবং আজ সকালে ফিরে চার ঘন্টা ঘুমিয়ে বাবার সাথে চলে গেলাম এই জমজমাট নিষ্পাপ কচিকাচাদের আসরে।”

Related Articles

Back to top button