বিনোদনসেরা খবর

সিনেমাহলে নেই দর্শক, আমিরের সমস্ত প্রচেষ্টাই ব্যর্থ, বক্স অফিসে রীতিমত ভরাডুবি ‘লাল সিং চাড্ডা’র

আমির অভিনীত বহুল আলোচিত এবং প্রতিক্ষিত ছবি লাল সিং চাড্ডা। গতকালই প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। দীর্ঘদিন পর এই ছবিটির হাত ধরেই বলিউডে প্রত্যাবর্তন করেছেন মিস্টার পারফেকশনিস্ট আমির খান। ছবিটি নিয়ে ব্যাপক প্রত্যাশা ছিলো অভিনেতা সহ নির্মাতা প্রত্যেকেরই। তবে আমির সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারলো কি?

হলিউড মুভি ‘ফরেস্ট গাম্প’ ছবির রিমেক এটি। ছবির খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই বিতর্ক যেন ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে গেছে ছবিটির সাথে। একপ্রকার বিতর্কিত ছবিও বলা যায় এটিকে। এমনকি সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলেই ‘#Boycott Laal Singh Chaddha’-র ট্রেন্ডও শুরু করে মানুষ। কিন্তু হঠাৎ কী এমন হলো যে জনতা এরকম খেপে উঠলো।

আসলে বেশ কয়েকবছর আগেই আমির খানের করা একটি মন্তব্যকে ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক। একদা তিনি বলেছিলেন যে, ভারত আর বসবাসযোগ্য নয়, এই অসহিষ্ণু দেশে তার স্ত্রী নিরাপদ মনে করছেননা। এছাড়াও তার পিকে সিনেমার বেশ কিছু দৃশ্য হিন্দু সেন্টিমেন্টে আঘাত দিয়েছে বলেও দাবি করছে সবাই। আর এই জ্বলন্ত আগুনে ঘি ঢেলেছে ছবির আরেক মূখ্য শিল্পী করিনা কাপুরের বক্তব‌্য। একদা তিনি বলেছিলেন, ‘দর্শকরা যাচ্ছে কেন ছবি দেখতে, আমরা কাউকে ফোর্স করিনি’। সবে মিলিয়ে ‘বয়কট লাল সিং চাড্ডা’ বেশ শোরগোল ফেলে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

আর এর ফলাফল ভালোভাবেই নজর এলো বক্স অফিসে। সাধারণত শুক্রবার ছবি মুক্তি পেলেও এই বছর রাখির কথা মাথায় রেখে ছক ভেঙে বৃহস্পতিবারেই মুক্তি পায় ” লাল সিং চাড্ডা। যে কোনো ছবিই মুক্তি পেলে তার কালেকশন নিয়ে আলোচনা হওয়াটা স্বাভাবিক, এক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম নয়, তবে তা যেন একটু অন্যরকম।

সোশ্যাল মিডিয়া ঘুরলেই এটা জানা যাচ্ছে যে, বেশিরভাগ মানুষেরই এটা জানার কৌতুহল বেশি যে, হল কতটা দর্শকশূন্য ছিলো। আর বলাইবাহুল্য যে, সবরকম চেষ্টা করেও দর্শক টানতে খুব একটা সমর্থ হননি আমির খান। বয়কট রুখতে যে রকম প্রচার তিনি করেছিলেন এইদিন তার সিকিভাগ দর্শকের দেখাও মিললো না হলে। বেশিরভাগ জায়গাতেই হাতে গোনা কিছু মানুষ নিয়ে শো শুরু হয়। এবং ট্রেড বিশেষজ্ঞদের মতে দেশজুড়ে যে বিতর্ক শুরু হয়েছিলো তারই ফলাফল এটা।

২০১৫ সালে করা আমির পত্নী কিরণের মন্তব্য এবং করিনার ঐ বিতর্কিত মন্তব্যের সমস্ত ক্ষোভ উগরে দিয়েছে এই ছবির উপর। অনেকে তো আমিরের দরগায় যাওয়ার একটি ছবি শেয়ার করে এটাও বলেছে যে, বলিউড অভিনেতাদের যত আক্রোশ হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর। অনেকে তো আবার বলিউডকে হিন্দুবিরোধী আখ্যা দিতেও পিছপা হয়নি। সম্প্রতি এই বিষয়ে মুখ খুলেছেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতও। তার দাবি আমিরের ভুল এবং অযৌক্তিক মন্তব্যই এই বয়কটের জন্য দায়ি।

Related Articles

Back to top button