বিনোদনসেরা খবর

ঐশ্বর্য-জয়া থেকে করিনা-শর্মিলা, বলিউডের এই ৫ বৌমা-শাশুড়ির সম্পর্ক সম্পর্ক ঠিক মা-মেয়ের মতোই

‘যেমন বাবা তেমন ছেলে, যেমন মা তেমন মেয়ে’, এই কথাগুলো আপনারা সবাই নিশ্চয়ই বহুবার শুনেছেন, কিন্তু ‘যেমন শাশুড়ি তেমন পুত্রবধূ’ এই কথা কি কখনো শুনেছেন? এই কথা খুব কম শোনা যায়। আজ বলিউডের এমন শাশুড়ি ও বৌমার কথা বলবো, যারা দুজনেই নামকরা অভিনেত্রী। আবার দুজনের সম্পর্ক বেশ ভালো। চলুন, তাহলে জেনে নেওয়া যাক, এই শাশুড়ি-বৌমার জুটির সম্পর্কে।

ঐশ্বরিয়া রাই-জয়া বচ্চন- ঐশ্বর্য যিনি ১৯৯৪ সালে মিস ওয়ার্ল্ডের মুকুট পেয়েছিলেন, বর্তমানে তিনি বচ্চন পরিবারের পুত্রবধূ। ২০০৭ সালে অভিষেক বচ্চনকে বিয়ে করেন ঐশ্বর্য। এই অভিনেত্রীর শাশুড়ি জয়া তার সময়ের সেরা অভিনেত্রীও ছিলেন। বহুদিন আগেই তিনি অভিনয় থেকে দূরে গিয়েছেন, যদিও ঐশ্বর্যকে বিয়ের পরেও সিনেমা করতে দেখা যাচ্ছে। ঐশ্বর্য এবং জয়ার মধ্যে খুব ভালো সম্পর্ক রয়েছে।

করিনা কাপুর খান-শর্মিলা ঠাকুর- ২০১২ সালে করিনা, সাইফ আলি খানকে বিয়ে করেছিলেন। সাইফের থেকে ১০ বছরের ছোট হওয়া সত্ত্বেও করিনা তাকে বিয়ে করাই ঠিক ভেবেছিলেন। বর্তমানে করিনা ও সাইফ খুব খুশি দম্পতি। তাদের দুই পুত্র সন্তান রয়েছে। করিনার শাশুড়ি শর্মিলা ঠাকুর তার সময়ের একজন বিখ্যাত অভিনেত্রী ছিলেন। জানা যায়, করিনা ও শর্মিলার সম্পর্ক খুবই মধুর। দুজনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আছে। আবার তারা একে অপরকে অনেক সম্মানও দেয়।

মান্যতা দত্ত- নার্গিস- বলিউড অভিনেতা সঞ্জয় দত্তের তৃতীয় স্ত্রী হলেন মান্যতা দত্ত। সঞ্জয়ের মা নার্গিস ছিলেন তার সময়ের সেরা অভিনেতাদের একজন। বহু বছর আগেই ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান নার্গিস। সঞ্জয়ের প্রথম স্ত্রী রিচাও ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এরপরে সঞ্জয়ের দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথে তার বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছিল। তারপরে মান্যতাকে তৃতীয়বার বিয়ে করেছিলেন সঞ্জয়। বিয়ের আগে কিছু ছবিতে কাজ করেছেন মান্যতা। দুর্ভাগ্যক্রমে, নার্গিসের মৃত্যুর কারণে তিনি তার পুত্রবধূ মান্যতার সাথে কখনও দেখা করতে পারেননি।

সোহা আলী খান- জ্যোতি খেমু- সাইফের বোন সোহা আলি খান ২০১৫ সালে অভিনেতা কুনাল খেমুকে বিয়ে করেন। আপনারা অনেকেই জানেন না যে কুনালের মা জ্যোতি খেমুও অভিনেত্রী হিসেবে কাজ করেছেন। পুত্রবধূ এবং শাশুড়ি জ্যোতির সাথে ভাল সম্পর্ক রয়েছে।

নুতন-একতা- অতীতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী নূতনকে সবাই চেনেন। তার অভিনয় ছিল দুর্দান্ত। নূতনের ছেলে মোহনীশ বহলও একজন সুপরিচিত অভিনেতা। মোহনীশ বিয়ে করেছিলেন একতা সাহনিকে। যিনি চলচ্চিত্র ও টিভি সিরিয়ালে অভিনেত্রী হিসেবেও কাজ করেছেন। নূতনের মৃত্যুর মাত্র এক বছর পর মোহনীশ-একতার বিয়ে হয়। সেজন্য নুতন তার বৌমাকে দেখে যেতে পারেননি।

 

 

Related Articles

Back to top button