বিনোদনসেরা খবর

লম্ফঝম্ফই সার, দর্শকদের প্রত্যাশা পূরণে পুরোপুরি ব্যর্থ বিজয় দেবরাকোন্ডার ‘লাইগার!’

এইমুহুর্তে সোশ্যাল মিডিয়ার নতুন ট্রেন্ড লাইগার। ২৫ আগস্ট অর্থাৎ আজই মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। দক্ষিণী ছবি ‘ডিয়ার কমরেড’ এবং ‘অর্জুন রেড্ডি’ সিনেমা দিয়ে ঝড় তোলার পর ‘লাইগার’ ছবির হাত ধরে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেছে বিজয় দেবরাকোন্ডা। ছবির নাম ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই ভক্তদের মধ্যে আগ্রহ ছিলো তুঙ্গে। তবে ছবি মুক্তির পর দর্শকরা কী বলছে ছবি নিয়ে?

লাইগার বিজয় দেবরাকোন্ডার অন্যতম বহুল চর্চিত ছবি যা মুক্তির আগে থেকেই তুমুল চর্চায়। পুরি জগন্নাথ পরিচালিত এই ছবি নিয়ে মানুষের প্রত্যাশাও ছিলো আকাশছোঁয়া। বিজয় দেবরাকোন্ডা এবং অনন্যা পান্ডের পাশাপাশি ছবির বিশেষ আকর্ষণ কিংবদন্তি বক্সিং আইকন মাইক টাইসন-এর একটি ক্যামিও।

অর্থাৎ সবে মিলিয়ে ছবিটিকে আকর্ষণীয় করে তুলতে কোনো খামতিই রাখেননি নির্মাতারা। তবে দর্শকদের কেমন লেগেছে এই ছবি? মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, যথেষ্ট পরিশ্রম করার পরও সেরকম পারফর্ম করতে পারেননি বিজয়। দর্শকদের ছবির যে হাইপ তৈরি করা হয়েছিলো তার ধারে কাছেও পৌঁছায়নি বিজয় অনন্যার পারফরম্যান্স।

‘লাইগার’ একটি গরিব ছেলের গল্প যে একটি বস্তিতে থেকে ‘এম এম এ’ চ্যাম্পিয়নশিপ জেতার স্বপ্ন দেখে। এই স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করতে তার সাথ দেয় তার মা রাম্যা কৃষ্ণন। বলিউডের এমনিই ভরাডুবি চলছে এখন, তার মাঝে বিজয় দেবরাকোন্ডার এই ছবি নিয়ে একটু আশার আলো দেখছিলো নির্মাতারা। তবে দর্শকদের মতে ছবি হিট হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

ছবি মুক্তির দিনেই ছবি নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য শুরু হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর এই নেগেটিভিটির প্রভাব যে বক্স অফিসেও পড়বে তা বলাই বাহুল্য। ফিল্ম ক্রিটিকদের মতে দূর্বল চিত্রনাট্য এবং নির্দেশকদের ব্যর্থতার কারণেই ছবিকে মানসম্মত করে তুলতে সক্ষম হননি বিজয় দেবরাকোন্ডা। এমনকি একজন ইউজার তো এটাও বলেছেন যে, ‘বিজয় যথেষ্ট এফর্ট দিয়েছে কিন্তু পুরোটাই ভুল জায়গায়’। একজন তো সরাসরি বলেই দিয়েছেন, “পুরি জগন্নাথের গোল্ডেন দিন শেষ। তার ছবিগুলি খারাপ সেটা ঠিক আছে কিন্তু তিনি কেন এরকম একটা ছবিতে বিজয় এবং রাম্যার মতো তারকাদের কাস্ট করলেন? এরকম একটা ছবিতে এই ধরণের তারকাদের দেখাটা খুবই দুঃখজনক”।

ছবি দেখার পর বেশিরভাগ নেটিজন এটাই বলছেন যে, বিজয় এবং রাম্যা দুজনেই তাদের জায়গায় যথেষ্ট ভালো পারফর্ম করলেও দূর্বল চিত্রনাট্যই ডোবাবে এই ছবিকে। একজন ইউজার লিখেছেন, “প্যান ইন্ডিয়া ছবির আইডিয়া আসলে একটি বাবল। আগে বেসিক শিখুন এবং ভালো গল্প নিয়ে আসুন। একজন জনৈক ব্যক্তির কথায়, “লাইগার নিয়ে হতাশ, প্যান ইন্ডিয়া ইমেজ ধরে রাখতে পুরোপুরি ব্যর্থ ছবিটি”।

Related Articles

Back to top button