বিনোদনসেরা খবর

মেয়েদের পটানোর জন্য ড্রাগস নিতেন, সবাই ‘চরসি’ বলে ডাকত, জীবনের অন্ধকার জগত নিয়ে অকপট সঞ্জয় দত্ত

বলিউডের (Bollywood) জনপ্রিয় অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত (Sanjay Dutt)। যদিও তিনি বলিউডের কাছে ব্যাড বয় হিসেবে পরিচিত। মাদক কান্ড থেকে শুরু করে বেআইনি অস্ত্র রাখার অপরাধে বারংবার আইনি ঝামেলায় পড়েছেন তিনি। বেশ কিছু বছর জেলও খেটেছেন অভিনেতা। তবে এখন তিনি বদলে গেছেন পুরোপুরি। এ মুহূর্তে ‘কেজিএফ চ্যাপ্টার টু’ (KGF Chapter 2) -এর ‘অধীরা’ চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকদের কাছ থেকে প্রশংসা কুড়িয়েছেন সঞ্জয় দত্ত।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে তার মাদক নেওয়া প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলেছেন তিনি। সঞ্জয় বলেছেন যে তিনি মনে করতেন ড্রাগস নিলে তাকে কুল লাগবে। এক সময় তাকে ‘চরসি’ নামে ডাকা হতো। এটাও জানিয়েছেন অভিনেতা। এরপরই সঞ্জুবাবা বলেছেন যে জীবনের দশটা বছর তার ঘরেই কেটে গেছে নয়তো বা বাথরুমে। সেই সময় তার শুটিংয়ের কোনো ইচ্ছাই ছিল না। আর এটাই তো জীবন। তিনি যখন রিহাব থেকে ফিরলেন। তখন সবাই তাকে চরসী বলে ডাকা শুরু করলো।

এই জিনিসটা খুব খারাপ লেগেছিল সঞ্জয় দত্তের। এরপর তিনি মনে মনে ভেবে ছিলেন তাকে কিছু একটা করতে হবে। তাই তিনি শরীরচর্চায় মন দিলেন। এরপর সবাই তার বডি দেখে প্রশংসা করতো। সঞ্জয় দত্ত বলেন, “আমি খুব লাজুক ছিলাম। মেয়েদের সাথে কথা বলতেও খুব লজ্জা পেতাম। তাই আমি ড্রাগস নেওয়া শুরু করি যাতে আমাকে কুল দেখায়। তুমি যত ড্রাগস নেবে, তুমি ততই ‘কুলার গাই’ হয়ে যাবে, তুমি মেয়েদের সাথে কথা বলতে পারবে সহজে।”

এগুলো ভাবতেন একসময় সঞ্জয় দত্ত। যদিও ক্যান্সার থেকে মুক্তির পর এখন বেশ কিছু ছবির কাজ নিয়ে ব্যস্ত আছেন অভিনেতা। অক্ষয় কুমারের ‘পৃথ্বীরাজ’ ছবিতে খুব শীঘ্রই দেখা যাবে সঞ্জয় দত্তকে।

Related Articles

Back to top button