বিনোদনসেরা খবর

‘প্রসেনজিৎ মানেই ছবি হিট’, শুটিংয়ের সময় বুম্বাদার ব্যবহার নিয়ে মুখ খুললেন চুমকি চৌধুরী

একসময় টলিউডে একের পর এক সুপারহিট পারিবারিক ছবি উপহার দিয়েছিলেন অঞ্জন চৌধুরী। সেইসময় রমরমিয়ে চলত অঞ্জন চৌধুরীর সিনেমা। আর তার দুই কন্যা চুমকি চৌধুরী ও রিনা চৌধুরী, সেইসময় অসাধারণ অভিনয় করে দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছিলেন। অঞ্জন চৌধুরীর সিনেমায় তারা ছাড়াও অন্যান্য অভিনেতা-অভিনেত্রীরা থাকতেন। এখন সেই সময়ের অনেক তারকারা ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে গেলেও বর্তমানে অঞ্জন চৌধুরীর দুই কন্যাকে সিনেমার পর্দাতে দেখতে পাওয়া যায় না।

তবে এবার বাংলা ছবিতে তার বাবা অঞ্জন চৌধুরীকে নিয়ে বিদ্রুপ করাতে প্রতিবাদে সরব হয়েছেন দুই মেয়ে। কিছুদিন আগেই পরিচালক মৈনাক ভৌমিকের ছবি ‘একান্নবর্তী’ মুক্তি পেয়েছিল। এই ছবিতে একটি সংলাপে বিদ্রুপ করা হয়েছিল অঞ্জন চৌধুরীকে। আর মৈনাকের মত শিক্ষিত একজন পরিচালকের কাছ থেকে এটা কখনোই আশা করতে পারেননি তারা। আর তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদ জানিয়েছেন দুই বোন। সেই আশি-নব্বইয়ের এর দশকে বহু সুপার হিট ছবি উপহার দিয়েছেন অঞ্জন চৌধুরী।

সেইসময় তার সিনেমা করেই প্রসেনজিৎ, তাপস পাল, চিরঞ্জিতের মতো অভিনেতা জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। তবে সেই সময় নেপোটিজম ছিল না, এর কারণ সেটা থাকলে তাহলে বাংলা সিরিয়ালের বিখ্যাত প্রযোজক পরিচালক সন্দীপ চৌধুরী যিনি অঞ্জন চৌধুরীর ছেলে তার সিরিয়ালের অনায়াসে কাজ করতে পারতেন চুমকি ও রিনা। এই দুই অভিনেত্রীর জানিয়েছেন, রঞ্জিত মল্লিক তাদের বাবার মত। রঞ্জিত মল্লিক একবার মজা করে ছোটবেলায় তাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন নায়িকা হতে চান কিনা? এরপর বড় হয়ে অভিনেত্রী রঞ্জিত মল্লিককে জানিয়েছিলেন যে আমি অভিনেত্রী হতে দেখেছি।

সন্ধ্যা রায়কে নিয়েও কথা বলেছেন তারা। সন্ধ্যা রায় তাদের গ্লিসারিন ছাড়া অভিনয়ের সময় চোখে জল আনা শিখিয়েছিলেন। অনুপ কুমার শিখিয়েছিলেন কিভাবে বড় পর্দায় চোখের পলক ফেলতে হয়। এরকমই নানা পুরোনো স্মৃতি তুলে ধরেছেন। এমনকি তারা বলেছেন, একসময় প্রসেনজিৎ ও তাপস পালের সাথে গল্প করলে তাদের দুজনকে সেই গল্প না শুনে ঘর থেকে বেরিয়ে যেতে বলতেন।

Related Articles

Back to top button