বিনোদনভিডিওসেরা খবর

প্রসেনজিৎকে প্রেমিক হিসেবে না পেয়ে আফসোস প্রকাশ রচনার! তবুও দুজনের মনের মিল কিন্তু অটুট, রইল ভিডিও

রচনা-প্রসেনজিৎ এই জুটির নাম নিলেই মাথার মধ্যে ভেসে ওঠে অসংখ্য সব গান এবং ছবির দৃশ্য। টলিউডের অন্যতম সফল জুটি তারা। দীর্ঘ কেরিয়ারে তারা বাঙালিকে উপহার দিয়েছেন একাধিক ছবি, যার প্রায় সবকটিই সুপারহিট। বড়ো পর্দায় আজও এই জুটি সমান প্রাসঙ্গিক।

কয়েক বছর আগে শ্বাশত চ্যাটার্জির অনুষ্ঠান অপুর সংসার শো’তে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রচনা। সেখানেই আফসোসের সাথে বলেছিলেন, ‘প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় কোনওদিন আমার প্রেমে পড়ল না’। যদিও এই পুরোটাই ছিল নিছক মজা। প্রেমের সম্পর্ক না হলেও দুজনের মধ্যে মিল যে কতখানি তারই প্রমাণ মিললো বুম্বাদার সাম্প্রতিকতম ইনস্টাগ্রাম রিলে।

আসলে এইদিন একটা মজার খেলায় মেতেছিলেন এই দুই তারকা। ‘দিস আর দ্যাট’-এই ভাইরাল চ্যালেঞ্জে মত্ত ছিলেন নব্বই দশকে পর্দা কাঁপানো এই জুটি। ভিডিও দেখে জানা গেলো একদিকে রচনা যেমন চা প্রেমী অপরদিকে প্রসেনজিৎ ব্ল্যাক কফির ভক্ত। অভিনেত্রীর পছন্দ ক্রিকেট তো অভিনেতার পছন্দ ফুটবল। হলিডে তে রচনার পছন্দ সমুদ্র তো প্রসেনজিৎ-এর আবার পাহাড়।

যদিও এইসব অমিলের মাঝে মিলও রয়েছে দুজনের। দুজনের কেউই নাকি পাথরটি ভক্ত নয়। তার চেয়ে বাড়িতে আড্ডা দিতেই বেশি পছন্দ তাদের। এমনকি দুজনের কেউই চ্যাট পারসন না, মেসেজের চেয়ে ফোনে কথা বলাকেই বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকেন।

পাশাপাশি ভিডিওতে নজর কেড়েছে দুই তারকার পোশাকও। লাল রঙের ওয়ান পিসে মনেই হচ্ছিলোনা রচনার বয়স ৪৭। এদিকে ক্রিম রঙা কার্গো প্যান্ট, ব্লু টি-শার্ট আর শ্যাওলা সবুজ বোতাম খোলা শার্টে বছর ষাটের বুম্বাদা যেন কোনো তরুণ যুবা। ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আসতেই কমেন্ট বক্স ভরে উঠেছে প্রশংসাবার্তায়। রুক্মিনী মৈত্র এই ভিডিয়োর কমেন্ট বক্সে লিখেছেন, ‘খুব মিষ্টি’।

প্রসঙ্গত, এই দুই তারকাকে শেষবার একসাথে দেখা গেছে গত জুন মাসে ‘দিদি নম্বর ১’-এর মঞ্চে। প্রসেনজিৎ-দিতিপ্রিয়ার ‘আয় খুকু আয়’ ছবির প্রোমোশনে গিয়েছিলেন বুম্বাদা। প্রসেনজিৎ এখনও বড়ো পর্দায় কাজ করলেও রচনা আপাতত অভিনয় জগত থেকে দূরেই রয়েছেন। তবে অনুরাগীদের ইচ্ছে আবারও একসাথে ক্যামেরার সামনে হাজির হোক এই দুজন।

Related Articles

Back to top button