বিনোদনসেরা খবর

সলমনের এই ভুলের জন্য তাকে চিরকালের মতো ছেড়ে যান ঐশ্বর্য, ফাঁস গোপন তথ্য

বলিউডের দুটি বড়ো নাম ঐশ্বর্য রাই এবং সলমন খান। বলিউডে যে সমস্ত হাইপ্রোফাইল ব্রেক আপ রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হলো সলমন-ঐশ্বর্যের বিচ্ছেদ। দুই তারকার সম্পর্কের সূচনা এবং বিচ্ছেদ দুই ব্যাপক শোরগোল ফেলেছিলো বি টাউনে। তারপর কেটে গেছে প্রায় দুই দশক। এতো বছর পরও দুই তারকার বিচ্ছেদের কারণ ঘিরে একাধিক গুঞ্জন আজও ইতিউতি ঘোরাফেরা করে।

একদিকে যেখানে ঐশ্বর্য-অভিষেকের সুখী গৃহকোণের ছবি অপরদিকে আজও সিঙ্গেল রয়ে গেছেন ভাইজান। সঞ্জয় লীলা বানসালির ‘হাম দিল দে চুকে সনম’ ছবির শুটিং চলাকালীন ঘনিষ্ঠ হয় দুইজন। কালের প্রবাহে গতি নেয় দুই তারকার প্রেম। তবে এর মাঝেই ঘটে যায় বেশ কিছু ঘটনা।

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী ২০০১ সালে অভিনেত্রীর সঙ্গে প্রবল বিবাদ বাধে সুলতানের। ঝামেলা এতোটাই তুঙ্গে পৌঁছায় যে ঐশ্বর্য সলমনের ফোন কলসও অ্যাভয়েড করতে থাকে। তাদের সম্পর্ক নিয়ে মানুষ যত না কৌতূহলী ছিলো তার চেয়ে দ্বিগুণ কৌতূহলী হয়ে পড়েছিলো তাদের ব্রেকাপ নিয়ে।

বিভিন্ন পত্র পত্রিকার খবর অনুযায়ী জানা গেছে, এক রাতে ঐশ্বর্যর বাড়ির সামনে গিয়ে দরজায় ধাক্কাধাক্কি করতে থাকেন সলমন। ঘড়ির কাঁটা বলছে রাত তখন অনেক। সলমনের এই আচরণে ক্ষুব্ধ হন ঐশ্বর্যর প্রতিবেশীরাও। তবে সেই সময় ঐশ্বর্য দরজা না খুলে ফিরে যেতে বলেন সলমনকে। এই ঘটনার এক বছর পরই সম্পর্কে ইতি টানার কথা জানায় ঐশ্বর্য।

জানা যায়, সলমনের ওভার পজেসিভনেসের কারণেই নাকি সরে আসতে বাধ্য হয়েছিলেন অভিনেত্রী। একবার এক সাক্ষাৎকারে রাই সুন্দরী জানান, সলমন নাকি হামেশাই সন্দেহ করতো তাকে। তার ধারণা ঐশ্বর্য নাকি কো-স্টারদের সঙ্গে সম্পর্কে লিপ্ত ছিলো। এমনকি তাদের ঝগড়া হাতাহাতি পর্যায়েও পৌঁছে গিয়েছিলো।

শোনা যায়, শাহরুখ অভিনীত চলতে চলতে ছবির শুটিং চলাকালীন সলমন পৌঁছে গেছিলো সেটে। এবং সেখানে গিয়ে প্রবল তুলকালাম কান্ড ঘটান তিনি। প্রায় সাড়ে চার ঘন্টা ধরে চলে দুজনের বাকবিতণ্ডা। অবস্থা বেগতিক দেখে শাহরুখ মধ্যস্ততা করতে চাইলে তাকেও অপমান করে বসেন সলমন। শুধু তাই নয় ঐশ্বর্য জানায় এই সময় নিজেকেও বহুবার ক্ষতবিক্ষত করেছে অভিনেতা।

এরপর ঐশ্বর্য সম্পর্কে জড়ান বিবেক ওবেরয়ের সঙ্গে। সেই কারণে বিবেকের সাথেও শত্রুতা তৈরি করে নেয় সলমন। তাদের মধ্যে ঝামেলার সূত্রপাত হলে বিবেকের সাথেও ব্রেক আপ করতে বাধ্য হয় ঐশ্বর্য। এবং পরবর্তী সময়ে অভিষেক বচ্চনকে বিয়ে করেন তিনি। এমতাবস্থায় মিডিয়া যখন ঐশ্বর্যর বিয়ে নিয়ে সলমন খানের প্রতিক্রিয়া জানতে চেয়েছিল, তখন অভিনেতা বলেছিলেন যে “তিনি ঐশ্বরিয়ার সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য প্রার্থনা করেন। তিনি খুশি যে ঐশ্বরিয়া তার জীবনসঙ্গী হিসাবে অভিষেকের মতো একজনকে বেছে নিয়েছেন”।

Related Articles

Back to top button