Zee Bangla Ke Prothom Kachhe Esechhi Serial Upcoming Twist Revealed

Kakali Chatterjee

মিহির আসল মা নয় মধুবনী! তাহলে কিসের সম্পর্ক? ফাঁস ‘কে প্রথম কাছে এসেছি’র জব্বর টুইস্ট!

নিউজশর্ট ডেস্ক : মধ্যবিত্ত বাঙালি বাড়ির কাছে বিনোদন মানেই সিরিয়াল (Bengali Seriall)। সন্ধ্যের চা- মুড়ির সাথে মিলে মিশে একাকার হয়ে যায় মা-কাকিমাদের পছন্দের জগদ্ধাত্রী-পরনারা । এবার সেই তালিকায় নাম লেখানো মধুবনি। সদ্যই জি বাংলার (Zee Bangla) পর্দায় শুরু হয়েছে এক নতুন ধারাবাহিক ‘কে প্রথম কাছে এসেছি’ (Ke Prothom Kache Esechi)। সিঙ্গেল মাদারের গল্প নিয়ে শুরু হওয়া এই ধারাবাহিক ইতিমধ্যেই দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছে। ৫ বছরের মেয়ে মিহিকে নিয়ে মধুবনীর জীবনযাপনের গল্প বলবে এই নতুন ধারাবাহিক। অফিসের বসের সঙ্গে মিহির বন্ধুত্ব কি নতুন জীবন দেবে মধুবনীকে? সেই গল্পই বলবে ‘কে প্রথম কাছে এসেছি’ ধারাবাহিকটি। 

ধারাবাহিকের মূল বিষয়

   

প্রোমো থেকে ধারাবাহিক সবেতেই দেখা যাচ্ছে যে, মধুবনী অফিসে মিহিকে নিয়ে গেছে, কিন্তু মেয়ে সেখানে নেই, মিহি চলে গেছে তার ‘ভালো লোকের’ কাছে। এরপর মধুবনী কাজ মিটিয়ে স্যারের কাছ থেকে মিহিকে নিয়ে এসে যখন বেরোতে যাবে তখন খুব বৃষ্টি বাইরে প্রচন্ড দুর্যোগ একা ওইটুকু মেয়েকে নিয়ে কিভাবে সে বাড়ি ফিরবে তখন তার স্যার তাকে গাড়িতে করে ছেড়ে দিয়ে যায়। যদিও মধুবনী প্রথম থেকে আপত্তি করে জানায় যে, আমি একজন সামান্য কলিগ আমাকে সবসময় এইভাবে আপনি সাহায্য করেন বিষয়টা অনেকেই স্বাভাবিকভাবে দেখেন না।

এই কথা শুনে স্যার বলেন, অস্বাভাবিক তিনি কিছুই করেন নি। এরপর দেখা যায় বাড়ি চলে এসেছে কিন্তু বাড়ি আসতে আসতে মিহি ঘুমিয়ে পড়েছে। মিহি কে কোলে করে নিয়ে গিয়ে তখন নিজের ঘরে যেতে যেতে মধুবনী বলে সে দুর্বল হতে পারে না, কারণ তাকে একলা মায়ের লড়াইটা চালিয়ে যেতেই হবে। তখনই মিহি বলে ওঠে ‘স্যার আঙ্কেল কি তার পাপা হতে পারে না?’

আরও পড়ুনঃ রেজিস্ট্রিতেই ইতি, সামাজিক বিয়ের আগেই বিচ্ছেদ অর্ণব-ইপ্সিতার! কারণ ফাঁস করলেন খোদ অভিনেতা

জি বাংলায় ধারাবাহিকের এই প্রোমো দেখে যেখানে সবাই বলছেন যে মোহনাকে মায়ের মত লাগছে না কারণ ওর মধ্যে এজেড ব্যাপারটা নেই, ও প্রচন্ড ছোট। মূল গল্প অনুযায়ী মধুবনি মিহিকার নিজের মা নয়, সম্পর্কে সে মিহির মাসি। ইতিমধ্যেই একদিন ধারাবাহিকে দেখা যায়, মিহির শ্বাস কষ্টের সমস্যায় হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় তাকে। আর ঠিক সেই সময় চিকি ৎসকদের কাছে মধুবনি মিহিকার নিজের মা নয়, বলে স্বীকার করে।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে কিছু কিছু ধারাবাহিককে ৬ মাস বা ৮ মাসেই তাদের ইতি টানতে হচ্ছে। কলাকুশলীরা যদিও এর জন্য দর্শককেই দায়ী করেছেন। অনেকের দাবি, বর্তমানে মানুষের সময়ের খুবই অভাব। তাই একই গল্প আধ ঘণ্টা ধরে প্রতিদিন মানুষ আর দেখতে চাইছে না। তবে সিঙ্গেল মাদারের লড়াইয়ের এই গল্প ভালো টিআরপি টানতে পারে বলে মত দর্শকদর একাংশের। যদিও দর্শকদের মন জয় করে ঠিক কতদিন অন্য ধারাবাহিকের সাথে লড়াইয়ে টিকে থাকতে পারবে, তার উত্তর সময়ই দেবে ।